প্রকাশিত: ০৭:৫৫ পিএম, ০৮ এপ্রিল ২০২০

প্রাণঘাতী বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্তিতিতে বিশ্বব্যাপি লকডাউন, কারফিউসহ জরুরি অবস্থা বিরাজ করছে। এ পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার (১২ শাবান) ভারতের ঐতিহ্যবাহী সর্বোচ্চ দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানটির মুহতামিম আবুল কাসেম নোমানি লকডাউন ও শবে বরাত প্রসঙ্গে দুইটি জরুরি আহ্বান জানিয়েছেন। আর তাহলো-

শবে বরাত প্রসঙ্গে
৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার শাবান মাসের ১৪ তারিখ। সে আলোকে বৃহস্পতিবার ও শুক্রবারের মধ্যবর্তী রাতটিই শবে বরাত। এ রাতে জিকির-ইবাদত, দোয়-ইসতিগফার এবং পরবর্তী দিন (শুক্রবার) রোজা পালনের ফজিলত বিভিন্ন হাদিস থেকেই প্রমাণিত।

তবে সবার সম্মিলিত অংশগ্রহণে কোনো আমল হাদিসে প্রমাণিত নেই। এ জন্যে এ রাতে কবরস্থানে যেতে উৎসাহিত করা হয় না। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কেবল একবার একাকি কবরস্থানে যাওয়ার কথা বর্ণনায় পাওয়া যায়। এ কারণে এ রাতে অনেক মানুষ সম্মিলিতভাবে কবরস্থানে বা মসজিদে গমন করে থাকে এবং বিভিন্ন আমল করে থাকে।

ফলে সকল মুসলমানের দৃষ্টি আকর্ষণ করা যাচ্ছে-
বর্তমান (বৈশ্বিক মহামারি করোনা) পরিস্থিতিতে যেখানে জরুরি আমল (জামাআতে নামাজ ও জুমুআ ইত্যাদি) এর জন্য বাইরে বের হতে নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। তাই-
– যে কেউ যেন শবে বরাত উপলক্ষ্যে মসজিদে অথবা কবরস্থানে বের হওয়া থেক বিরত থাকুন।
– ঘরের শিশু ও যুবকদের বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত রাখুন।
– মোমবাতি, আতশবাজি বা আলোক সজ্জা করে গোনাহ ও রুসুম পরিহারে শতভাগ ব্যবস্থা নিশ্চিত করুন।
– যতটুকু সম্ভব নফল নামাজ, দোয়া ও ইসতেগফারের আমল ঘরে আদায় করুন।
– সম্ভব হলে শুক্রবার ১৫ শাবান রোজা রাখুন। এটি মুসতাহাব আমল।
– এর বাইরে সব ধরনের সম্মিলিত ও মনগড়া অপ্রমাণিত আমল পরিপূর্ণরূপে বর্জন করুন।

>> লকডাউন প্রসঙ্গে
করোনা ভাইরাসের তীব্র প্রাদুর্ভাবের এ পরিস্থিতিতে পৃথিবীর অধিকাংশ রাষ্ট্রের মতো আমাদের দেশেও লকডাউন কার্যকর রয়েছে। এখনো বিভিন্ন মানুষের ব্যাপারে এ অভিযোগ শোনা যাচ্ছে যে, তারা সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাইরে বের হচ্ছে। সুতরাং সব মুসলমানের কাছে অনুরোধ, এ সম্পর্কে দুটি বিষয় মেনে চলা একান্ত আবশ্যক। আর তাহলো-
>> সরকারি আইন-কানুন মেনে চলা আমাদের নৈতিক দায়িত্ববোধই নয় বরং ইসলামি শরিয়তের দাবিও বটে। কেননা এ সময়ের রাষ্ট্রীয় নিষেধাজ্ঞার অন্যতম লক্ষ্য হলো- দেশের নাগরিকদের জীবনের নিরাপত্তা বিধান করা।

>> বৈশ্বিক মহামারি করোনার ক্ষেত্রে শরিয়ত তথা হাদিসের নির্দেশনা হলো- আক্রান্ত অঞ্চলের লোক বাইরে যাবে না এবং বাইরের লোক আক্রান্ত অঞ্চলে আসবে না। এ সম্পর্কে বিভিন্ন হাদিস এবং ‍হজরত ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহু এবং অন্যান্য সাহাবাদের কর্মপন্থা থেকেও পথনির্দেশনা পাওয়া যায়।

এজন্য কোনো মুসলমান রাষ্ট্রীয় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করবেন না ও স্বাস্থ্যবিধির প্রতি উদাসিনতা প্রদর্শন করবেন না। রাষ্ট্রীয় সিদ্ধান্ত ও নির্দেশনা মেনে চলা ইসলামি শরিয়তের বিধান মেনে চলার নামান্তর। এগুলো আমাদের সেই ঈমানি বিশ্বাসের পরিপন্থী নয় যে, যা কিছু হয়, স্রেফ আল্লাহর পক্ষ থেকেই হয়।

ইসলামি শরিয়ত যেভাবে আমাদের এ আকিদা দিয়েছে যে, শরিয়ত মোতাবেক স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সতর্কতা অবলম্বন করা। পাশাপাশি বেশি বেশি তাওবা-ইসতিগফার, দোয়া-দরূদ পড়া এবং কুরআন তেলাওয়াতের প্রতি মনোযোগ দেয়া। আল্লাহ তাআলার কাছে নিজেদের জন্য ও পুরো বিশ্বের জন্য রোগমুক্তির দোয়া করুন। মহান আল্লাহ আমাদের সবার ওপর সন্তুষ্ট হোন এবং সবার ওপর রহমত বর্ষণ করুন। আমিন।

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ২১৮ ২০ ৩৩
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪,০০,৫৪৯ ১২,৮৫৭ ২১,৭১১
স্পেন ১,৪৬,৬৯০ ১৪,৫৫৫ ৪৮,০২১
ইতালি ১,৩৫,৫৮৬ ১৭,১২৭ ২৪,৩৯২
জার্মানি ১,০৯,৩২৯ ২,০৯৬ ৩৬,০৮১
ফ্রান্স ১,০৯,০৬৯ ১০,৩২৮ ১৯,৩৩৭
চীন ৮১,৮০২ ৩,৩৩৩ ৭৭,২৭৯
ইরান ৬৪,৫৮৬ ৩,৯৯৩ ২৭,০৩৯
যুক্তরাজ্য ৫৫,২৪২ ৬,১৫৯ ১৩৫
১০ তুরস্ক ৩৪,১০৯ ৭২৫ ১,৫৮২
১১ বেলজিয়াম ২৩,৪০৩ ২,২৪০ ৪,৬৮১
১২ সুইজারল্যান্ড ২২,৭৮৯ ৮৫৮ ৮,৭০৪
১৩ নেদারল্যান্ডস ২০,৫৪৯ ২,২৪৮ ২৫০
১৪ কানাডা ১৭,৮৯৭ ৩৮১ ৪,০৫০
১৫ ব্রাজিল ১৪,১৫২ ৬৯৯ ১২৭
১৬ পর্তুগাল ১৩,১৪১ ৩৮০ ১৯৬
১৭ অস্ট্রিয়া ১২,৮৮১ ২৭৩ ৪,৫১২
১৮ দক্ষিণ কোরিয়া ১০,৩৮৪ ২০০ ৬,৭৭৬
১৯ ইসরায়েল ৯,৪০৪ ৭২ ৮০১
২০ রাশিয়া ৮,৬৭২ ৬৩ ৫৮০
২১ সুইডেন ৮,৪১৯ ৬৮৭ ২০৫
২২ নরওয়ে ৬,০৮৬ ৯৩ ৩২
২৩ অস্ট্রেলিয়া ৬,০১৩ ৫০ ২,৮১৩
২৪ আয়ারল্যান্ড ৫,৭০৯ ২১০ ২৫
২৫ চিলি ৫,৫৪৬ ৪৮ ১,১১৫
২৬ ভারত ৫,৪৮০ ১৬৪ ৪৬৮
২৭ ডেনমার্ক ৫,৩৮৬ ২১৮ ১,৬২১
২৮ চেক প্রজাতন্ত্র ৫,০৩৩ ৯১ ১৮১
২৯ পোল্যান্ড ৫,০০০ ১৩৬ ২২২
৩০ রোমানিয়া ৪,৭৬১ ২১৫ ৫২৮
৩১ জাপান ৪,২৫৭ ৯৩ ৬২২
৩২ পাকিস্তান ৪,১৮৩ ৫৮ ৪৬৭
৩৩ মালয়েশিয়া ৪,১১৯ ৬৫ ১,৪৮৭
৩৪ ইকুয়েডর ৩,৯৯৫ ২২০ ১৪০
৩৫ ফিলিপাইন ৩,৮৭০ ১৮২ ৯৬
৩৬ লুক্সেমবার্গ ২,৯৭০ ৪৪ ৫০০
৩৭ ইন্দোনেশিয়া ২,৯৫৬ ২৪০ ২২২
৩৮ পেরু ২,৯৫৪ ১০৭ ১,৩০১
৩৯ সৌদি আরব ২,৯৩২ ৪১ ৬১৫
৪০ মেক্সিকো ২,৭৮৫ ১৪১ ৬৩৩
৪১ সার্বিয়া ২,৬৬৬ ৬৫ ১১৮
৪২ সংযুক্ত আরব আমিরাত ২,৬৫৯ ১২ ২৩৯
৪৩ ফিনল্যাণ্ড ২,৪৮৭ ৪০ ৩০০
৪৪ থাইল্যান্ড ২,৩৬৯ ৩০ ৮৮৮
৪৫ পানামা ২,২৪৯ ৫৯ ১৬
৪৬ কাতার ২,২১০ ১৭৮
৪৭ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ১,৯৫৬ ৯৮ ৩৬
৪৮ গ্রীস ১,৮৩২ ৮১ ২৬৯
৪৯ কলম্বিয়া ১,৭৮০ ৫০ ১০০
৫০ দক্ষিণ আফ্রিকা ১,৭৪৯ ১৩ ৯৫
৫১ আর্জেন্টিনা ১,৭১৫ ৬২ ৩৩৮
৫২ ইউক্রেন ১,৬৬৮ ৫২ ৩৫
৫৩ সিঙ্গাপুর ১,৬২৩ ৪০৬
৫৪ আইসল্যান্ড ১,৬১৬ ৬৩৩
৫৫ আলজেরিয়া ১,৪৬৮ ১৯৩ ১১৩
৫৬ মিসর ১,৪৫০ ৯৪ ২৭৬
৫৭ ক্রোয়েশিয়া ১,৩৪৩ ১৯ ১৭৯
৫৮ মরক্কো ১,২৪২ ৯১ ৯৭
৫৯ নিউজিল্যান্ড ১,২১০ ২৮২
৬০ এস্তোনিয়া ১,১৮৫ ২৪ ৭২
৬১ ইরাক ১,১২২ ৬৫ ৩৭৩
৬২ স্লোভেনিয়া ১,০৯১ ৪০ ১২০
৬৩ বেলারুশ ১,০৬৬ ১৩ ৭৭
৬৪ মলদোভা ১,০৫৬ ২৪ ৪০
৬৫ হংকং ৯৬১ ২৬৪
৬৬ লিথুনিয়া ৯১২ ১৫
৬৭ হাঙ্গেরি ৮৯৫ ৫৮ ৯৪
৬৮ আর্মেনিয়া ৮৮১ ১১৪
৬৯ কুয়েত ৮৫৫ ১১১
৭০ আজারবাইজান ৮২২ ৬৩
৭১ বাহরাইন ৮২১ ৪৬৭
৭২ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ৭৯৯ ৩৪ ৭৯
৭৩ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১১ ৬১৯
৭৪ কাজাখস্তান ৭০৯ ৫৪
৭৫ ক্যামেরুন ৬৮৫ ৬০
৭৬ স্লোভাকিয়া ৬৮২ ১৩
৭৭ তিউনিশিয়া ৬২৩ ২৩ ২৫
৭৮ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ৬১৭ ২৯ ৩৫
৭৯ বুলগেরিয়া ৫৯৩ ২৪ ৪২
৮০ লাটভিয়া ৫৭৭ ১৬
৮১ লেবানন ৫৭৫ ১৯ ৬২
৮২ এনডোরা ৫৬৪ ২৩ ৫২
৮৩ উজবেকিস্তান ৫৪৫ ৩০
৮৪ সাইপ্রাস ৪৯৪ ৪৭
৮৫ কোস্টারিকা ৪৮৩ ২৪
৮৬ উরুগুয়ে ৪২৪ ১৫০
৮৭ আফগানিস্তান ৪২৩ ১৪ ১৮
৮৮ ওমান ৪১৯ ৭২
৮৯ আলবেনিয়া ৪০০ ২২ ১৫৪
৯০ কিউবা ৩৯৬ ১১ ২৭
৯১ বুর্কিনা ফাঁসো ৩৮৪ ১৯ ১২৭
৯২ তাইওয়ান ৩৭৯ ৬৭
৯৩ রিইউনিয়ন ৩৫৮ ৪০
৯৪ জর্ডান ৩৫৩ ১৩৮
৯৫ আইভরি কোস্ট ৩৪৯ ৪১
৯৬ চ্যানেল আইল্যান্ড ৩৩৫ ৩৪
৯৭ হন্ডুরাস ৩১২ ২২
৯৮ মালটা ২৯৯
৯৯ ঘানা ২৮৭ ৩১
১০০ সান ম্যারিনো ২৭৯ ৩৪ ৪০
১০১ নাইজার ২৭৮ ১১ ২৬
১০২ মরিশাস ২৭৩ ১৯
১০৩ কিরগিজস্তান ২৭০ ৩৩
১০৪ ফিলিস্তিন ২৬৩ ৪৪
১০৫ নাইজেরিয়া ২৫৪ ৪৪
১০৬ ভিয়েতনাম ২৫১ ১২৬
১০৭ মন্টিনিগ্রো ২৪৮
১০৮ সেনেগাল ২৪৪ ১১৩
১০৯ বলিভিয়া ২১০ ১৫
১১০ জর্জিয়া ২০৮ ৪৮
১১১ শ্রীলংকা ১৮৯ ৪৪
১১২ ফারে আইল্যান্ড ১৮৪ ১৩১
১১৩ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ১৮০ ১৮
১১৪ কেনিয়া ১৭৯
১১৫ মায়োত্তে ১৭১ ২২
১১৬ ভেনেজুয়েলা ১৬৬ ৬৫
১১৭ আইল অফ ম্যান ১৫৮ ৮০
১১৮ মার্টিনিক ১৫২ ৫০
১১৯ গিনি ১৪৪
১২০ গুয়াদেলৌপ ১৩৯ ৩১
১২১ ব্রুনাই ১৩৫ ৯১
১২২ জিবুতি ১৩৫ ২৫
১২৩ প্যারাগুয়ে ১১৯ ১৫
১২৪ কম্বোডিয়া ১১৭ ৬৩
১২৫ জিব্রাল্টার ১১৩ ৬০
১২৬ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ১০৭
১২৭ রুয়ান্ডা ১০৫
১২৮ মাদাগাস্কার ৯৩ ১১
১২৯ এল সালভাদর ৯৩
১৩০ গুয়াতেমালা ৮০ ১৭
১৩১ মোনাকো ৭৯
১৩২ লিচেনস্টেইন ৭৮ ৫৫
১৩৩ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ৭৭ ৩৪
১৩৪ আরুবা ৭৪ ১৪
১৩৫ টোগো ৭০ ২৩
১৩৬ জ্যামাইকা ৬৩ ১০
১৩৭ বার্বাডোস ৬৩
১৩৮ মালি ৫৬ ১২
১৩৯ ইথিওপিয়া ৫৫
১৪০ উগান্ডা ৫২
১৪১ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ৪৭
১৪২ ম্যাকাও ৪৫ ১০
১৪৩ কেম্যান আইল্যান্ড ৪৫
১৪৪ কঙ্গো ৪৫
১৪৫ সিন্ট মার্টেন ৪০
১৪৬ জাম্বিয়া ৩৯
১৪৭ বারমুডা ৩৯ ১৭
১৪৮ বাহামা ৩৬
১৪৯ গায়ানা ৩৩
১৫০ গিনি বিসাউ ৩৩
১৫১ সেন্ট মার্টিন ৩২
১৫২ ইরিত্রিয়া ৩১
১৫৩ গ্যাবন ৩০
১৫৪ বেনিন ২৬
১৫৫ হাইতি ২৫
১৫৬ তানজানিয়া ২৪
১৫৭ মায়ানমার ২২
১৫৮ লিবিয়া ২১
১৫৯ মালদ্বীপ ১৯ ১৩
১৬০ সিরিয়া ১৯
১৬১ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ১৯
১৬২ নিউ ক্যালেডোনিয়া ১৮
১৬৩ অ্যাঙ্গোলা ১৭
১৬৪ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ১৬
১৬৫ মঙ্গোলিয়া ১৬
১৬৬ নামিবিয়া ১৬
১৬৭ ডোমিনিকা ১৫
১৬৮ লাওস ১৫
১৬৯ ফিজি ১৫
১৭০ সেন্ট লুসিয়া ১৪
১৭১ সুদান ১৪
১৭২ লাইবেরিয়া ১৪
১৭৩ কিউরাসাও ১৩
১৭৪ গ্রেনাডা ১২
১৭৫ গ্রীনল্যাণ্ড ১১ ১০
১৭৬ সিসিলি ১১
১৭৭ জিম্বাবুয়ে ১১
১৭৮ সেন্ট কিটস ও নেভিস ১১
১৭৯ সুরিনাম ১০
১৮০ মোজাম্বিক ১০
১৮১ ইসওয়াতিনি ১০
১৮২ চাদ ১০
১৮৩ জান্ডাম (জাহাজ)
১৮৪ নেপাল
১৮৫ মন্টসেরাট
১৮৬ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক
১৮৭ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড
১৮৮ সোমালিয়া
১৮৯ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড
১৯০ বেলিজ
১৯১ মালাউই
১৯২ ভ্যাটিকান সিটি
১৯৩ কেপ ভার্দে
১৯৪ সিয়েরা লিওন
১৯৫ মৌরিতানিয়া
১৯৬ সেন্ট বারথেলিমি
১৯৭ নিকারাগুয়া
১৯৮ বতসোয়ানা
১৯৯ ভুটান
২০০ গাম্বিয়া
২০১ পশ্চিম সাহারা
২০২
২০৩ এ্যাঙ্গুইলা
২০৪ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ
২০৫ বুরুন্ডি
২০৬ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস
২০৭ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড
২০৮ পাপুয়া নিউ গিনি
২০৯ দক্ষিণ সুদান
২১০ পূর্ব তিমুর
২১১ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন

তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।

Please follow and like us:

Check Also

দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ১৬৮, নতুন শনাক্ত ৫৬৪///

 ৩০ এপ্রিল, ২০২০ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। ফাইল ছবি দেশে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email

Website Design, Developed & Hosted by ALL IT BD