সুষ্ঠু নির্বাচন হলে সরকারের একজন মন্ত্রীও জিততে পারবেনা -ব্যারিস্টার মওদুদ

দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বর্তমান সরকারের একজন মন্ত্রীও জিততে পারবেনা বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ। তিনি বলেন, সরকার এককভাবে নির্বাচন করতে চায় এই ভয়ে যে তারা জিততে পারবেনা। তারা সুষ্ঠু নির্বাচন করতে চান না। আর তিন মাসও নেই, কিন্তু সরকারের আচরণ দেখে বোঝা যায় তারা আজকে কতটা ভীত। সরকারের উচিত ছিল নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি করা। কিন্তু উল্টো প্রমাণ করেছে, তারা একক নির্বাচন করতে চায়। শুধু এই লক্ষ্যে তারা কাজ করছে। সরকারই ইচ্ছেকৃতভাবে পরিবেশ নষ্ট করছে। শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, ‘সময় কম, অল্প সময়ের মধ্যে এই সরকারের বাঁধ ভাঙতে হবে। মাঠে নামতে হবে যাতে সরকার আলোচনায় বসতে বাধ্য হয়। তিনি বলেন, ‘সরকার মনে করেছিল, খালেদা জিয়াকে কারাবন্দি করলে বিএনপি খণ্ড-বিখণ্ড হয়ে যাবে। বর্তমান বিএনপি আগের যেকোনও সময়ের চেয়ে ঐক্যবদ্ধ।’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনের পর থেকে সরকারকে আমরা বিচলিত দেখতে পাচ্ছি উল্লেখ করে মওদুদ বলেন, ‘বিভিন্ন রকমের বক্তব্য দিয়ে প্রমাণ করেছেন তারা ঐক্যফ্রন্টকে ভয় পান। এই ঐক্যের মাধ্যমে আমরা যে সঠিক কাজ করেছি সরকারের সমালোচনা শুনেই সেটা বুঝতে হবে। তাদের অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যে প্রমাণ হয়ে গেছে আগামীতে সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ বিপুল ভোটে পরাজিত হবে।’

দেশের মানুষের মধ্যে একটা আশা তৈরি হয়েছে দাবি করে মওদুদ বলেন, ‘আজকে গ্রামগঞ্জের মানুষ একটাই কথা বলে, ঐক্য হয়ে গেছে। মনে একটা আশা তৈরি হয়েছে। একটা আশার আলো দেখতে পারছেন দেশের মানুষ। নিজেদের মধ্যে একটা আস্থা ফিরে পেয়েছেন। মানুষ আশা দেখছেন আগামী নির্বাচনে নিজেদের ইচ্ছামতো ভোট দিতে পারবেন।’

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন— বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতুল্লাহ, বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরামের উপদেষ্টা সাঈদ আহমেদ আসলাম, সভাপতি মুহাম্মদ সাইদুর রহমান প্রমুখ।

Please follow and like us:
0