সবচেয়ে বেশি রাজস্ব বকেয়া টেলিটকের

রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটকের কাছে সরকারের সবচেয়ে বেশি রাজস্ব বকেয়া রয়েছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

আজ রোববার ক্ষমতাসীন দলের সাংসদ গোলাম রাব্বানীর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

তারানা হালিমের অনুপস্থিতিতে তাঁর হয়ে প্রশ্নের জবাব দেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ। তিনি জানান, টেলিটকের কাছে ১ হাজার ৬১০ কোটি ৯ লাখ টাকা ও প্যাসিফিক টেলিকমের (সিটিসেল) কাছে ৪৮৪ কোটি ৪৭ লাখ টাকা বকেয়া রয়েছে। টেলিটক রাষ্ট্রায়ত্ত বিধায় ওই বকেয়া ইক্যুইটি বার পেইড আপ ক্যাপিটাল হিসেবে অ্যাডজাস্ট করার এখতিয়ার সরকারের আছে। এ–সংক্রান্ত প্রস্তাব অর্থ মন্ত্রণালয়ে বিবেচনাধীন আছে।

রাজশাহীর এনামুল হকের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রীর পক্ষে প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, বিদ্যুৎ অবকাঠামো খাতে বিশ্বব্যাংক থেকে চলতি অর্থবছরে ‘বাংলাদেশ পাওয়ার সিস্টেম সিকিউরিটি অ্যান্ড এফিসিয়েন্সি ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট’ নামের একটি প্রকল্পে ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সমপরিমাণ প্রায় ৮০০ কোটি টাকা ঋণ গ্রহণ করা হবে। চলতি অর্থবছরের শেষের দিকে এ–সংক্রান্ত চুক্তি সই হবে।

আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, রাষ্ট্রমালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর (সরকারি/বেসরকারি) বকেয়া ৮ হাজার ২৮৩ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। এর মধ্যে চিনি খাদ্যশিল্প করপোরেশনের কাছে পাওনা ৪ হাজার ৫৮ কোটি ৬২ লাখ টাকা এবং কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশনের কাছে পাওনা ২ হাজার ১০৪ কোটি ৪৫ লাখ টাকা।

সানজিদা খানমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বর্তমানে বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সাহায্যপুষ্ট ৫৪টি প্রকল্প বা উন্নয়ন প্রকল্প চালু আছে। প্রকল্পগুলোর কাজে আগস্ট ২০১৬ পর্যন্ত ৩৫ হাজার ৮৪০ কোটি টাকা খরচ হয়েছে। এ প্রকল্পগুলোর অনুকূলে বিশ্বব্যাংক প্রায় ৬৯ হাজার ৬০০ কোটি টাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে অর্থ প্রতিমন্ত্রী জানান, গত ৩০ জুন ব্যাংকিং সেক্টরে মোট অলস অর্থের পরিমাণ ছিল ৪ হাজার ১৯ কোটি টাকা।

Please follow and like us:
0