আ.লীগ ভুল থেকে শিক্ষা নিচ্ছে না: আমীর খসরু

ক্ষমতা ধরে রাখতে আওয়ামী লীগ ভয়ভীতি প্রদর্শন ও রাষ্ট্রযন্ত্র ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, এ দলটি এখন রাজনীতির মধ্যে নেই। জনগণের ওপর আস্থা হারিয়ে রাষ্ট্রযন্ত্রের ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। এ আওয়ামী লীগ ভুল থেকে শিক্ষা নিচ্ছে না।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের মুসলিম হল মিলনায়তনে আয়োজিত এক শোকসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী এই মন্তব্য করেন। চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির সদস্যসচিব কাজী আবদুল্লাহ আল হাছানের মৃত্যুতে এই শোকসভার আয়োজন করা হয়।

চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সভাপতি শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে শোকসভায় প্রধান আলোচক ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াউদ্দিন কাদের চৌধুরী। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এস এম ফজলুল হক, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি জাফরুল ইসলাম চৌধুরী।

শোকসভায় আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ক্ষমতা আঁকড়ে ধরে রাখতে আওয়ামী লীগ আগে চেষ্টা করেছিল। কিন্তু সেটার জন্য দলটির অনেক ক্ষতি হয়েছে। অথচ এই আওয়ামী লীগ ভুল থেকে শিক্ষা নিচ্ছে না। একই ভুল আবার করে যাচ্ছে। জনগণের মধ্যে ভীতি ছড়িয়ে ক্ষমতা ধরে রাখতে চাইছে। দেশ ও জাতি এবং নিজেদের স্বার্থে আওয়ামী লীগকে সরে যেতে হবে।

দলীয় নেতা-কমীদের উদ্দেশে আমীর খসরু বলেন, আওয়ামী লীগের ক্ষমতা ধরে রাখার প্রক্রিয়া প্রতিহত করতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ফিরিয়ে আনতে হবে নাগরিকদের ভোটাধিকার। জনগণ সুষ্ঠু পরিবেশে ভোট দিতে পারলে জাতীয়তাবাদী শক্তি আবার ক্ষমতায় আসবে।

গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতা মহিউদ্দিন চৌধুরী কিছুদিন আগে ইন্তেকাল করেছেন। তাঁর মৃত্যুতে একটি শোকসভা হলো। সেই শোকসভা যেন উল্লাসে পরিণত হয়েছে। একটা শুভ দিন যেন আওয়ামী লীগে ফিরে এসেছে। এ ধরনের পরিস্থিতির কথা জিন্দেগিতে কখনো ভাবতে পারিনি, ভবিষ্যতেও দেখব না। একজন মানুষের মৃত্যুতে উল্লাস কিসের আলামত? আমাদের কপালে কী আছে জানি না। এই কুশিক্ষা জাতীয়তাবাদী দল নেবে না। আমরা শোকে শোকাহত হব। এক ভাইয়ের দুঃখে আমরা দুঃখিত হব।’

মাহবুবুর রহমান বলেন, স্বৈরাচারী কায়দায় আওয়ামী দেশ পরিচালনা করছে। এর বড় প্রমাণ, রাউজানের নির্বাচিত পৌর মেয়র হয়েও কাজী আবদুল্লাহ আল হাছানকে চেয়ারে বসতে না দেওয়া। কারণ, আওয়ামী লীগ জনমতকে তোয়াক্কা করে না। জনগণের ওপর দলটি আস্থা হারিয়ে ফেলেছে।

এস এম ফজলুল হক বলেন, ‘আমরা মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। কিন্তু দেশের মানুষের ভোটাধিকার ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নেই। দেশে নেই কোনো ন্যায়বিচার। ফলে বিএনপির অনেক নেতা-কর্মী মামলা-হামলার শিকার। তাই ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে দেশে ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনতে হবে।’

Please follow and like us:
0